• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook
সর্বশেষ :

সাবেক এবং বর্তমান মেররের পাল্টাপাল্টি মামলা

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট১০:৪০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৫, ২০১৬

ঝালকাঠি: ঝালকাঠি পৌরসভার সাবেক মেয়র সাম্প্রতিক পৌরনির্বাচনে ভরাডুবী হওয়া আফজাল হোসেন সহ ৫জনের বিরুদ্ধে পৌরসভার আড়াই লাখ টাকার মালামাল চুরির অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পৌরসভার ষ্টোরকিপার রতন দাস বাদী হয়ে সোমবার চীয় জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে এ মামলা (এমপি মামলা নং-৭১/১৬ ঝাল) দায়ের করেছে।

 
অন্যদিকে একই আদালতে আফজাল হোসেন বাদী হয়ে নবনির্বাচিত সৎ ও নির্ভিক মেয়র আলহাজ্ব মোঃ লিয়াকত আলী তালুকদার সহ ৬জনের বিরুদ্ধে পৌরমেয়রের কার্যালয়ে অবৈধ প্রবেশ পূর্বক গোপন ফাইল-দলিলপত্র সহ অন্যান্য কাগজপত্র নিয়ে যাওয়ার অভিযোগে পাল্টা একটি মামলা (এমপি মামলা নং-৭০/১৬ ঝাল) দায়ের করেছে। আদালতের বিচারক মোঃ জাহেদ আহম্মেদ ষ্টোরকিপার রতন দাসের অভিযোগ আগামী ১২জুলাই ও আফজাল হোসেনের অভিযোগ আগামী ১৩ জুলাই তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন প্রদানের জন্য ওসি পুলিশ তদন্ত ব্যুরো বরিশালকে নির্দেশ দিয়েছেন।

 
পৌরসভার ষ্টোরকিপার রতন দাসের মামলায় উল্লেখ করেছে, গত ১৫ এপ্রিল সন্ধ্যা ৭টায় প্রধান আসামী সাবেক মেয়র আফজাল হোসেনের নেতৃত্বে মোঃ দুলাল, মোঃ মুন্না, সেলিম হোসেন ও ফরিদ সহ ৪/৫ জনকে সাথে নিয়ে একটি নাম্বারবিহীন ট্রাক নিয়ে পৌরসভার পৌছে। এসময় নাইটগার্ড আঃ কুদ্দুস সাগরকে পৌর কার্যালয়ের গেট খুলে দিতে হুকুম দিলে সে ভয়ে গেট খুললে আসামী আফজাল হোসেন মেয়রের কক্ষে প্রবেশ করে ১টি ল্যাপটপ, ১টি ট্যাব, ২টি রঙ্গীন টিভি, চেয়ার-টেবিল, ৪টি সিলিংফ্যান, ১টি রাইচ কুকার, ২টি ষ্টানফ্যান, ইলেক্ট্রিক কেটলি ও একটি ডিসপ্লেবোর্ড সহ প্রায় আড়াই লাখ টাকার মালামাল লুটে নেয়।

 
পৌরসভার নাইটগার্ড সাগর বিষয়টি বাদিকে ফোন করে জানালে কয়েকজন স্বাক্ষীকে নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌছার পূর্বে উক্ত সরকারী মালামাল নিয়ে যেতে বাধা দিলে সকল আসামী তাকে কিলঘুষি মারে। এক পর্যায় প্রধান আসামী আফজাল হোসেন পিস্তল বেড় করে মামলামাল নিয়ে যাওয়ার কথা কাউকে বললে বা কোন মামলা করলে বাদী ও স্বাক্ষীদের হত্যার হুমকি দিয়ে অন্যান্য আসামীদের নিয়ে চলে যায়। পরবর্তীতে বিষয়টি পৌরসচিব ও নির্বাহী প্রকৌশলী সহ সকলকে জানিয়ে ও লুটে নেয়া মালামালের তালিকা করে ২১ এপ্রিল ঝালকাঠি থানায় মামলা দায়ের করতে গেলে পুলিশ মামলা গ্রহন না করায় আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন বলে অভিযোগে জানান।
অপরদিকে আফজাল হোসেনের দায়েরকৃত অভিযোগে উল্লেখ করেন, গত ১৭ এপ্রিল সকাল ১০টায় বিবাদী নবনির্বাচিত পৌরমেয়র আলহাজ্ব মোঃ লিয়াকত আলী তালুকদার সহ ৬জনের নামউল্লেখ সহ অজ্ঞাত ৮/১০জন অস্ত্রদারী বিবাদ অবৈধ ভাবে পৌরসভার মেয়রের কক্ষের তালা ভেঙ্গে প্রবেশ করে এবং মেয়র কক্ষে রক্ষিত খাতাপত্র, দলিল-দস্তাবেজ ও সংরক্ষিত অন্যান্য মালামাল নিয়ে যায়। খবর পেয়ে বাদী ঘটনাস্থলে প্রবেশকালে বিবাদিরা অস্ত্রের মুখে বাধা দিলে তার ডাকচিৎকারে কতক সাক্ষী ঘটনাস্থলে এসে তার প্রান রক্ষার চেষ্টা করে। পরবর্তীতে সে থানায় অভিযোগ করলে থানা পুলিশ কয়েকদিন ঘোরাঘুরে করিয়েও ২৪ এপ্রিল মামলা  গ্রহনে অপারগতা প্রকাশ করলে আদালতে অত্র মামলা দায়ের করেন।

 
এব্যাপারে নবনির্বাচিত মেয়র আলহাজ্ব মোঃ লিয়াকত আলী তালুকদার জানায়, ১৭ এপ্রিল সকাল ৯টায় ‘মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি স্তম্ভ’ চত্বরে মুজিব নগর দিবস পালন শেষে সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি সরদার মোঃ শাহআলম, সাধারন সম্পাদক এড. খান সাইফুল্লাহ পনির, চেম্বার সভাপতি ও শহর আ’লীগ সাধারন সম্পাদক মাহাবুব হোসেন সহ নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরবৃন্দ পৌরপরিষদের দায়িত্বভার গ্রহন করেছে। এসময় পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিভিন্ন মিডিয়ার সাংবাদিক সহ নানা শ্রেনীপেশার মানুষ পৌরকার্যালয়ে উপস্থিত চিলেন। তারা নবনির্বাচিত পৌরপরিষদকে শুভেচ্ছা জানালেও সাবেক মেয়র আফজাল সেদিন পৌরকার্যালয়ে আসেনি। আমি মনে করি  ক্ষমতালোভী ও দূর্নীতিবাজ খ্যাত আফজাল হোসেন কাল্পনিক ও ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে যে অভিযোগ করেছে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্তেই তার প্রমান হবে এবং আরো একবার তার মুখোশ উম্মোচিত হবে।

লাইভ

টপ