• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

সাংবাদিক শান্তর বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদ-নিন্দা

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট৫:১৬ অপরাহ্ণ, মে ৭, ২০১৬

নলছিটি সাংবাদিক ক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক আলোকিত বরিশাল পত্রিকার নলছিটি উপজেলা প্রতিনিধি ইঞ্জি. গোলাম মাওলা শান্তর বিরুদ্ধে একটি কু-চক্রি মহলের অপতৎপরতা,নগ্ন ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচারে উদ্বেগ প্রকাশ করে এসবের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিভিন্ন সাংবাদিক ও মানবাধিকার সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। সময়ের সাহসী এই কলম সৈনিকের জনপ্রিয়তার ঈর্ষান্বিত হয়ে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা,বানোয়াট, মনগড়া, ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও মানহানিকর সংবাদ প্রকাশ করে অপপ্রচার চালানোর নিন্দা জানিয়ে তারা বলেন,‘সমাজে বসবাস করতে গেলে মানুষের সাথে মতভেদ,মত পার্থক্য,মত বিরোধ থাকতেই পারে।

 

এটাকে পুজি করে একজন আদর্শবাদী সংবাদকর্মীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপপ্রচার সভ্য সমাজে কাম্য নয়। অর্ধ শিক্ষিত গুটি কয়েক হলুদ সাংবাদিক সাংবাদিকতা পেশাকে কলঙ্কিত করছে,যার লাগাম টেনে ধরতে সৎ,নির্ভীক সংবাদকর্মীদের এগিয়ে আসতে হবে’।

 

বিবৃতিদাতারা উল্লেখ করেন,‘যারা অন্যের বিরুদ্ধে অসত্য ও কুৎসা রটায় তারা কাপুরুষ। এটি সাংবাদিকতার  শিষ্টাচার বর্হিভূত এবং জনঘ্য অপরাধ। তাদের নিজেদের চরিত্র ঢাকার অপচেষ্টা মাত্র’। সম্প্রতি কয়েকটি স্থানীয় দৈনিকে প্রকাশিত সংবাদকে বনোয়াট,অসত্য ও রূপকথার কাল্পনিক গল্প হিসেবে উল্লেখ করে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি(পবিপ্রবিসাস),বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের পবিপ্রবি শাখা,ঝালকাঠী রিপোটার্স ইউনিটি,ঝালকাঠী মিডিয়া ক্লাব,মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ঝালকাঠী,পলিটেকনিক ছাত্রকল্যাণ ফোরাম,বাকেরগঞ্জ প্রেসক্লাব,দুমকি প্রেসক্লাব,কবি জীবনানন্দ দাস সাহিত্য কেন্দ্র ঝালকাঠী,রাজাপুর জাগরণ ছাত্রকল্যাণ পরিষদ।

 

এদিকে ইঞ্জি. গোলাম মাওলা শান্ত পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে কর্মরত থাকায় তাকে জড়িয়ে সংবাদ প্রকাশ করায় নিন্দা জানিয়েছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি,গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি,রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি,খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি। এছাড়াও সাংবাদিক শান্তর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচারের প্রতিবাদ জানিয়েছে নলছিটিতে কর্মরত বিভিন্ন মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা।

 

এ ব্যাপারে গোলাম মাওলা শান্ত বলেন,‘আমি সবসময় নির্যাতিত মানুষের পক্ষে কথা বলি, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আমি বিশ্বাসী এবং নিরপক্ষ থেকে সংবাদ পরিবেশন করি। এতে কিছু নামধারি হলুদ সাংবাদিক ব্যাক্তিগত ক্ষোভের বর্হিপ্রকাশ ঘটাতে সমাজে আমার সম্মান নষ্ট করতে সংবাদ পরিবেশন করেছেন। কোন কারনে আমি যদি অভিযুক্ত হই তাহলে ঘটনার ব্যাপারে আমার বক্তব্য না নিয়ে যে সংবাদটি পরিবেশন করা হয়েছে তা প্রকৃত সংবাদ কর্মীর কাজ নয় এবং এই এক পেশে সংবাদ সাংবাদিকতার নীতি নৈতিকতা, নীতিমালা, প্রকাশনা আইন ও তথ্য প্রযুক্তি আইনের পরিপন্থী’।

লাইভ

টপ