• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

শ্যালিকাকে আটকে ধর্ষণ, দুলাভাই গ্রেপ্তার

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট১:৪৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৩, ২০১৬

বরিশাল: স্কুলপড়–য়া শ্যালিকাকে অপহরণের পরে একটি বাসায় আটকে রেখে ২৮দিন পালাক্রমে ধর্ষণ করার অভিযোগে দুলাভাই সুলতান আহম্মেদ (৩০) নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এসময় উদ্ধার করা হয়েছে ধর্ষিতা স্কুলছাত্রীকে। শনিবার রাতে রাজধানীর আশুলিয়া থানা এলাকায় গৌরনদী থানা পুলিশ এ সফল অভিযান চালায়।

ধর্ষক সুলতান আহম্মেদ পটুয়াখালি জেলার মির্জাগঞ্জ উপজেলার আমলাগাছিয়া গ্রামের রশিদ গাজীর ছেলে। তবে সে ওই স্কুলছাত্রীর বড় বোনের স্বামী বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।’

যদিও পুলিশ সম্পর্কের বিষয়টি এখন এড়িয়ে গিয়ে গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন স্কুলছাত্রীর নানার দায়ের করা অপহরণ এবং ধর্ষণের মামলাটি। অবশ্য আটকের পরে দুলাভাই সুলতান আহম্মেদকে গ্রেপ্তারও দেখানো হয়েছে সেই মামলায়।

গৌরনদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলাউদ্দিন মিলন এজাহারের বরাত দিয়ে বরিশালটাইমসকে জানান, উপজেলার বালিকা স্কুল অ্যান্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী টিকাসার গ্রামে নানার বাড়িতে থেকে পড়াশুনা করে আসছিলো। গত ৫মার্চ প্রতিদিনের ন্যায় স্কুলছাত্রী ক্লাশের উদ্দেশ্যে রওনা হলে পথিমধ্যে চরগাতলী এলাকায় বসে সুলতানের তেতৃত্বে ৪ থেকে ৫ যুবক তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

পরবর্তীতে তাকে রাজধানীর আশুলিয়া থানা এলাকায় একটি বাসায় ২৮দিন আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন সুলতান। এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর নানা বাদী হয়ে শনিবার সকালে গৌরনদী থানায় একটি মামলা দায়ের করলে ওইদিন রাতেই আশুলিয়া থানা পুলিশের সহযোগিতায় ভিক্টিমকে উদ্ধার এবং ধর্ষককে আটক করা হয়।

তবে স্থানীয় সূত্র নিশ্চিত করেছে- সুলতান আহম্মেদের সাথে স্কুলপড়–য়া শ্যালিকা প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। সম্প্রতি সুলতান তার স্ত্রীকে ময়মনসিংহ রেখে এসে শ্যালিকাকে নিয়ে পালিয়ে ঢাকায় অবস্থান নেন। এ বিষয়টি মেনে নিতে না পাড়ায় ওই স্কুলছাত্রীর নানা বাদী হয়ে একটি ধর্ষণ মামলা ঢুকে দেন।’

লাইভ

টপ