• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

শেবাচিম হাসপালের বিদ্যুত সংযোগ বন্ধ, ভোগান্তিতে রোগীরা

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট৪:১৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১২, ২০১৭

বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল (শেবাচিম) কলেজ হাসপাতালের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে ট্রান্সফরমার বসানোর কাজ করায় চরম ভোগান্তির মধ্যে পড়েছে রোগীরা। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, তাদের জেনারেটর দিয়ে পুরো হাসপাতালের বিদ্যুৎ ব্যবস্থা চালু রাখা যায় না।

শেবাচিম হাসপাতালের পরিচালক এস এম সিরাজুল ইসলাম জানিয়েছেন, শনিবার (১২ আগস্ট) বেলা ১২টায় এ হাসপাতালের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে ট্রান্সফরমার স্থাপনের পিলার বসানোর কাজ শুরু হয়।

হাসপাতালের গাইনি ওয়ার্ডে ভর্তি হতে আসা নাজমা পারভীনের স্বামী ওয়াহিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমার স্ত্রী গুরুতর অসুস্থ থাকা সত্ত্বে¡ও লিফট ব্যবহার করে তৃতীয় তলায় উঠতে পারিনি। বিদ্যুৎ না থাকায় বাধ্য হয়ে স্ট্রেচারে করে তৃতীয় তলায় তুলতে হয়েছে।’

লিফটের সামনে বসে রয়েছেন বাকেরগঞ্জ থেকে চিকিৎসা নিতে আসা ৭০ বছরের বৃদ্ধ আশরাফ আলী ও তার ছেলে মো. কাদের। কাদের সাংবাদিকদের বলেন, ‘জরুরি বিভাগে ডাক্তারকে দেখানোর পর তিনি পঞ্চম তলায় মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি হতে বলেছেন। বাবার অবস্থা এতই খারাপ যে তাকে হাঁটিয়ে পাঁচ তলায় নেয়া সম্ভব নয়। তাই লিফটের সামনে বসে রয়েছি।’

হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে ঘুরে দেখা যায়, গরমে অতিষ্ঠ অনেক রোগী ও তাদের স্বজন ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। অর্থোপেডিক বিভাগে চিকিৎসা নেয়া হালিম নামের এক রোগী বলেন, ‘১২টা থেকে বিদ্যুৎ নেই। গরমের অসহ্য যন্ত্রণার মধ্যে পড়ে আছি।’

বিদ্যুৎসংযোগ বিচ্ছিন্ন করে পিলার বসানো আর ট্রান্সফরমার স্থাপনকে বিদ্যুৎ বিভাগের কা-জ্ঞানহীন কাজ বলে মন্তব্য করেন হাসপাতালের বেশ কজন ইন্টার্ন চিকিৎসক। তারা জানান, বিদ্যুৎ নেই বলে ভোগান্তিতে পড়ে হাসপাতালের হাজার হাজার রোগী।

শেবাচিম হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক দাস রনবীর বলেন, বিদ্যুৎ না থাকায় রোগী দেখতে সমস্যার হচ্ছে। মোবাইল ফোনের আলো জ্বালিয়ে দীর্ঘ সময় নিয়ে কাজ করতে হচ্ছে।

হাসপাতালের পরিচালক এস এম সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের যে জেনারেটর রয়েছে তা দিয়ে পুরো হাসপাতালের বিদ্যুৎ ব্যবস্থা কভার করা সম্ভব নয়। আমরা বিদ্যুৎ বিভাগকে বলেছি, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তারা যেন বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বরিশাল ওজোপাডিকো-১ এর নির্বাহী প্রকৌশলী তারিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, হাসপাতালের সামনে একটি ট্রান্সফরমার বদলানোর কাজ চলছে। এ কারণে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে।”

লাইভ

টপ