• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

মুক্তি পেলো বরিশালের ৩ শিশু

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৬, ২০১৬

বরিশাল: পাশ্ববর্তী বন্ধুরাষ্ট্র ভারতের কারাগারে দীর্ঘদিন বন্দি থাকার পরে অবশেষে মুক্তি পেলো বরিশালে তিন শিশু। সেই সাথে মুক্তি পেয়েছে নারীসহ এদেশের আরও আট জন। বুধবার বিকেলে তাদেরকে দেশে ফেরত পাঠিয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ)। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যরা রিসিভ করে তাদেরকে বাংলাদেশ মহিলা আইনজীবী সমিতি কাছে হস্তান্তর করেছে। মুক্তি পাওয়া এসব ব্যক্তিদের খুব শিগগিরই পরিবারের কাছে হস্তন্তর করা হবে বলে জানা গেছে।

 

 

সেক্ষেত্রে ধারণা করা হচ্ছে- বরিশালের ওই তিন শিশু ২/৪দিনের মধেই পরিবারের কাছে ফিরছে। এই তিন শিশু হলো- বরিশালের গৌরনদী উপজেলার সুবোধ সিকদারের ছেলে বিনয় সিকদার (১৫), আগৈলঝড়া উপজেলার হুসিয়ারমাত গ্রামের সুব্রত সরকারের ছেলে ইমন সরকার (১৬) এবং বরুয়ের ছেলে বাধন বরুই (১৫)। বাকিদের মধ্যে একজন হলো পাশ্ববর্তী গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়া উপজেলার বাঘমাসি গ্রামের বিভূধানের ছেলে রনি (১৬)।

 

 

এছাড়া মুক্তিপ্রাপ্তদের মধ্যে যশোরের বেনাপোল বন্দর এলাকার ধুলাখার ছেলে আলামিন (১৫), যশোর সদরের নদলীদাহ গ্রামের আব্দুল মান্যানের ছেলে সুমন (১৪), শার্শা উপজেলার শিকারপুর গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে সবুজ (১৪), বাঘারপাড়া উপজেলার কড়াইতলা গ্রামের আক্তারুজ্জামানের ছেলে মাজহারুল ইসলাম (১৫), নারায়ণগঞ্জের ফতুল্যা উপজেলার আজমারিবাদ গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে ছাব্বির হোসেন (১৪), ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার চরবালামারী গ্রামের রুপম ফকিরের মেয়ে শিল্পী আক্তর (২০), নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার তালবাড়িয়া গ্রামের আবু কাশেম মোল্যার স্ত্রী শিরিনা বেগম (৪৫) এবং রাগু খানের মেয়ে রিয়া খান (০৫)।

 

 

সূত্রমতে- বরিশালের এই তিন শিশুসহ বেশ কয়েক জনকে ভালো চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে ২০১২ সালের প্রথম দিকে পাশ্ববর্তী দেশ ভারতে নিয়ে একটি প্রতারক চক্র। অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের দায়ে তাদেরকে দেশটির বিভিন্ন এলাকায় থেকে আটক পুলিশ। পরবর্তীতে তাদেরকে দেশটির আদালত কারাগারে প্রেরণ করে। এর পর থেকে ভারতের কারাগারেই বন্দি ছিলো বরিশালের এই তিন শিশুসহ ১১জন। দীর্ঘদিন কারাভোগের পরে দেশটির আদালত তাদের মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) বিকেল ৩টায় স্বদেশ প্রত্যাবর্তন আইনে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্যদের কাছে তাদের হস্তান্তর করা হয়।

 

 

বিজিবি ২৬ ব্যাটালিয়নের বেনাপোল চেকপোস্ট আইসিপি ক্যাম্পের নায়েব সুবেদার আব্দুল্যাহীল ওয়াফী সাংবাদিকদের জানান, ফেরত আসা বাংলাদেশিদের এনজিও সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। তাদের নিজ নিজ পরিবারের কাছে পৌঁছে দেওয়া হবে।’

 

বাংলাদেশ মহিলা আইনজীবী সমিতির যশোর জেলা সমন্বয়কারী কর্মকর্তা এবিএম মুহিত হোসেন সাংবাদিকদের জানান, মুক্তিপ্রাপ্তদের যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। তাছাড়া ফেরত আসা কিশোর ও নারী শিশুদের পরিবার যদি পাচারকারীদের শনাক্ত করে মামলা করতে চায়, সেক্ষেত্রে তাদের আইনি সহয়তা দেওয়া হবে।

 

 

বরিশালের আগৈলঝাড়া এবং গৌরনদীর স্থানীয় একাধিক সূত্র জানিয়েছে- প্রতারক চক্রটি এইসব শিশুদের ভারতে পাঠানো জন্য তাদের পরিবারের কাছ থেকেও মোটা অঙ্কের অর্থ হাতিয়ে নেয়। কিন্তু ভারতে প্রবেশের পরে তারা পুলিশের হাতে আটক হওয়ার পরে প্রতারক চক্রের সদস্যরা হঠাৎ করে লাপাত্তা হয়ে যায়।

লাইভ

টপ