• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

ভোলায় রেড ক্রিসেন্ট দিবস পালিত

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট২:৩০ অপরাহ্ণ, মে ৮, ২০১৬

ভোলা: “রেড ক্রস রেড ক্রিসেন্ট সর্বত্র সবার জন্য ” এই স্লোগানকে সামনে রেখে ভোলায় নানা কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে পালিত হয়েছে বিশ্ব রেড ক্রোস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস।  দিবসটি উপলক্ষে রোববার সকালে বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি ভোলা জেলা ইউনিটের আয়োজনে ইউনিট অফিস থেকে বণার্ঢ্য একটি র‌্যালি বের করা হয়।

র‌্যালিটি বিভিন্ন ব্যানার প্লেকার্ড সহকারে ভোলা শহরের প্রদান প্রদান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে জেলা রেড ক্রিসেন্ট অফিসে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় ভোলা রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের সেক্রেটারি মো. আজিজুল ইসলামের সভাপত্বি বক্তব্য রাখেন নির্বাহী সদস্য মো. শফিকুল ইসলাম, মো. আনোয়ার হোসেন, জহিরুল ইসলাম নকীব, ফেরদৌউস আহমেদ, এ্যাডভোকেট মাহাবুবুল হক লিটু, ইউনিট অফিসার মাহাবুবুর রহমান মিলন, ভিটুআর প্রকল্পের সককারী প্রকল্প কর্মকর্তা মো. ইউনুস, ভোলা সরকারি স্কুলের সহকারী শিক্ষক মো. মাকসুদুর রহমান, যুব প্রধান বিবি ফাতেমা পপি, যুব প্রধান-১ আদিল হোসেন তপু তালুকদার এবং তথ্য জনসংযোগ বিভাগের প্রধান মো. আনোয়ার হোসেন প্রমুখ। পরে বিশ্বরেড ক্রোস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস উপলক্ষ্যে এক রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়।

এ সময় বক্তারা বলেন, ১৮৬৩ সালে গঠিত আত্মমানবতার সেবায় নিয়োজিত এ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা জঁ  হেনরি ডুনান্টের জন্মদিন উপলক্ষে সারা বিশ্বে এ দিবস পালিত হয়।
১৮৫৯ সালের ২৪ জুন উত্তর ইতালির সলফেরিনো এলাকায় ফ্রান্স ও অস্ট্রিয়ার মধ্যে এক ভয়াবহ যুদ্ধ সংঘটিত হয়। এ যুদ্ধে প্রায় ৪০ হাজার সৈন্য হতাহত হয়। এসব সৈনিকের মৃত্যু যন্ত্রণায় ছটফট এবং মর্মান্তিক  অবস্থা দেখে  সুইজারল্যান্ডের যুবক হেনরি ডুনান্ট।

তিনি আশপাশের গ্রামবাসীর সহায়তায় আহতদের তাতক্ষণিক সেবা ও প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাদের জীবন রক্ষা করেন।

এরাই ছিলেন রেড ক্রোসের প্রথম স্বেচ্ছাসেবক, যাদের অধিকাংশই ছিলেন নারী। পরে জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে আত্মমানবতার সেবায় ডুনান্ট  রেড ক্রোস প্রতিষ্ঠা করেন ১৮৬৩ সালে। বর্তমানে বিশ্বের ১৮৮টি দেশ রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্টের সদস্য।

১৯১০ সালে হেনরি ডুনান্টের মৃত্যুর  পর তার জন্মদিনকে সম্মান দেখিয়ে প্রতি বছর ৮  মেকে ‘বিশ্ব রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়।

লাইভ

টপ