• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

বানারীপাড়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর মাইক-কার্যালয় ভাঙচুর

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট৭:৪৫ অপরাহ্ণ, মার্চ ২০, ২০১৬

বরিশাল: বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর কর্মীরা এবং স্বতন্ত্র কর্মীদের সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ৬জন আহত হয়েছে। এসময় ভাঙচুর করা হয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচার মাইক ও কার্যালয়।

শনিবার রাতে  ও রোববার দুপুরে উপজেলার চাখার ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত খিজির সরদার এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী) সৈয়দ মজিদুল ইসলাম টুকুর কর্মীদের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়- শনিবার রাতে স্বতন্ত্র প্রার্থী (আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী) সৈয়দ মজিদুল ইসলাম টুকুর প্রচার গাড়ি ভাঙচুর এবং তার কর্মীদের মারধর করে আওয়ামী লীগের কর্মীরা।

এসময় বানারীপাড়া থানা পুলিশ মাসুম নামে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর এক কর্মীকে আটক করে। কিন্তু মাসুমের সহযোগিরা তাকে ছাড়িয়ে নেওয়ার চেষ্টা চালালে দুই পুলিশ আহত হয়।

এরই জের ধরে রোববার দুপুরে চাখারে অবস্থিত সৈয়দ মজিদুল ইসলাম টুকুর প্রধান নির্বাচনী ক্যাম্পসহ কালিবাজারের ক্যাম্পে হামলা চালায় নৌকার সমর্থকরা। এসময় তাদের হামলায় স্থানীয় অগ্রণী ব্যাংকের কর্মচারী ছালামসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়।

বানারীপাড়ার চাখার ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সৈয়দ মজিদুল ইসলাম টুকু বরিশালটাইমসকে জানান, শনিবার রাতে তার আনারস প্রতীকের প্রচার গাড়ি এবং মাইক ভাঙচুর করে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী খিজির সরদারের কর্মী ছাত্রলীগ পরিচয়ধারী মাসুম হাওলাদারসহ বেশ কয়েজন।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আওয়ামী লীগ প্রার্থী খিজির সরদার বলেন, সৈয়দ মজিদুল ইসলাম টুকু আওয়ামী লীগের কর্মী ছিলেন। এখন তিনি এ দল থেকে বের হয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন। তিনি নির্বাচনী প্রচারণার সময় আওয়ামী লীগের নেতাদের নিয়ে কটূক্তি করলে তার সঙ্গে আমার কর্মীদের বাক-বিতন্ডা হয়।

এছাড়া পুলিশ আহত হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, আমাদের উঠান বৈঠক চলছিলো। এসময় পুলিশ এসে এক সমর্থককে আটক করার চেষ্টা করলে অন্যরা তাকে ছাড়িয়ে নিতে গেলে দুই পুলিশ সামান্য আহত হন।

এ প্রসঙ্গে বানারীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল আহসান জানান, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এবং বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মীদের মধ্যে একটু ঝামেলা হয়েছে শুনেছি। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছানোর আগেই দু’পক্ষ ঘটনাস্থল ত্যাগ করে।’

তাছাড়া শনিবার রাতের ঘটনায় থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে। তবে ওটা তেমন বড় কোনো ঘটনা নয়।’

লাইভ

টপ