বাউফলে যৌতুক না দেওয়ায় প্রবাসী গৃহবধূকে ঘরে ঢুকতে বাঁধা | বরিশালটাইমস
৩৫ মিনিট আগের আপডেট বিকাল ২:২৮ ; বৃহস্পতিবার ; ফেব্রুয়ারি ২১, ২০১৯
EN Download App
Youtube google+ twitter facebook
×

বাউফলে যৌতুক না দেওয়ায় প্রবাসী গৃহবধূকে ঘরে ঢুকতে বাঁধা

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট
৮:০০ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৮

প্রবাস জীবনে দুই জনের সাথে পরিচয়, সেখান থেকে প্রেম। প্রেমের পরিণয় বিয়ে। দীর্ঘ চার বছর প্রবাস জীবনে সংসার ভালোই চলছিল। কিন্তু প্রেমিক স্বামীর অতিলোভে যেন সব কিছু শেষ হওয়ার পথে। তবুও চেষ্টা করছেন তার প্রীয় স্বামীর ঘর সংসার করতে। কিন্তু সব কিছুতেই বাঁধা হয়ে দাড়ায় যৌতুক নামের সর্বনাশা লোভটি। এমনই ঘটনা ঘটেছে পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার সূর্য্যমনি ইউনিয়নের নুরাইনপুর গ্রামে।

ওই গৃহবধূর নাম মনি আক্তার (২৯)। তিনি মাগুরা জেলা সদরের রামচন্দ্রপুর গ্রামের মো. আমজেদ আলী মোল্লার মেয়ে।

ওই গৃহবধূ ও স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে- মনি আক্তারের সঙ্গে মরিশাসে পরিচয় হয় যুবক মো. সাইফুল খানের (২৯)। ২০১৩ সালের ৫ নভেম্বর তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। সাইফুলের বাড়ি পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার সূর্য্যমনি ইউনিয়নের নুরাইনপুর গ্রামে। তার বাবার নাম মো. শাহজাহান খান।

রোববার দুপুরে সরেজমিনে ওই গৃহবধূকে তালাবদ্ধ ঘরের দরজার সামনে বসে থাকতে দেখা যায়। স্বামী ও তার পরিবারের লোকজন তার সঙ্গে যৌতুকের জন্য এমন আচরণ করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মনি আক্তার বলেন, ২০১৩ সালের শুরুর দিকে তিনি মরিশাস যান। সে খানে তার মামার তত্ত্বাবধানে একটি গার্মেন্টেসে কাজ শুরু করেন। একপর্যায়ে পরিচয় হয় মো. সাইফুল খানের (২৯) সঙ্গে।

সাইফুল একটি ডেকোরেটরের দোকানে চাকুরি করতেন। ধীরে ধীরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্কের পরিণয়ে তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এর কিছুদিন পর সাইফুলের চাকুরি চলে যায়। তার (মনি আক্তার) টাকায় চলতো তাদের সংসার। এরপরে সাইফুলের বিধবা মা শাহনাজ বেগম ও ছোট দুই ভাই মাসুম ও রাকিবের জন্যও খরচ পাঠাতেন তিনি।

একপর্যায়ে সাইফুল বাড়িতে ঘর উঠানোর কথা বলে তার (মনি আক্তার) জমানো তিন লাখ টাকা নিয়ে বাংলাদেশে চলে আসে। দেশে এসে সাইফুল তার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়।

নিরুপায় হয়ে ২০১৭ সালের ৭ মার্চ তিনিও (মনি) বাংলাদেশে চলে আসেন এবং স্বামীর বাড়িতে গিয়ে ওঠেন। আসার সময় তিনি ৭০ হাজার টাকা ও ১৬ ভরি স্বর্ণালংকার নিয়ে আসেন। প্রায় পাঁচ মাস ওই বাড়িইে থাকেন। একপর্যায়ে তার কাছে দুই লাখ টাকা চায় সাইফুল।

এতে রাজি না হওয়ায় জোরপূর্বক ৫০ হাজার টাকা ও ৪ ভরি স্বর্ণালংকার নিয়ে যায় সাইফুল। ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসে তারা ঢাকার সাভারে চলে যান। সেখানে গার্মেন্টেসে চাকুরি নেন তিনি। আর সাইফুল রাজমিস্ত্রীর কাজ শুরু করেন। বাড়িতে শাশুড়ি ও দুই ভাইয়ের জন্য প্রতিমাসে পাঁচ হাজার টাকা পাঠাতেন। প্রায় চার মাস পরে আবারও তার কাছে মোটরসাইকেল কেনার জন্য দুই লাখ টাকা চান সাইফুল। দিতে না পারায় যোগাযোগ বন্ধ করে আত্মগোপন করে থাকেন সাইফুল এবং এ ঘটনায় তাকে (মনি) গুম মামলা দেওয়ার ভয় দেখান শাশুড়ি।

গত শুক্রবার সাইফুলের খোঁজে তিনি বাড়িতে আসেন এবং সাইফুলকে দেখতে পান। এতে সাইফুল ও তার পরিবারের সদস্যরা ক্ষিপ্ত হন। তাকে (মনি) মারধর করে ঘরে তালা লাগিয়ে সাইফুল ও তার পরিবারের সদস্যরা এক আত্মীয়ের বাড়িতে গিয়ে ওঠে। শুক্রবার থেকে গতকাল পর্যন্ত অন্যের দেওয়া ভাত খেয়ে তিনি ওই ঘরের বারান্দাই অবস্থান করছেন।

এ বিষয়ে সাইফুল ও তার পরিবারের অন্য সদস্যদের সাথে চেষ্টা করেও কোন যোগাযোগ করা যায়নি। বাউফল থানার ওসি মনিরুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে তার জানা নেই।’

গণমাধ্যম

আপনার মতামত লিখুন :

ভুইয়া ভবন (তৃতীয় তলা), ফকির বাড়ি রোড, বরিশাল ৮২০০।
ফোন: ০৪৩১-৬৪৮০৭, মোবাইল: ০১৭১৬-২৭৭৪৯৫
ই-মেইল: barisaltime24@gmail.com, bslhasib@gmail.com
© কপিরাইট বরিশালটাইমস ২০১২-২০১৮
টপ
  উজিরপুরে যাত্রিবাহি বাসের চাপায় ২ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র নিহত  আগুনে পুড়ে প্রাণ গেল ৭০ জনের  শোক প্রকাশ করে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর  নিমতলী থেকে চুড়িহাট্টা সরকারের ‘ঘুমে’ বাড়ছে কান্না  তোমার কোলে তোমার বোলে কতই শান্তি ভালবাসা...  চকবাজারে ভয়াবহ আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৩৩ ইউনিট  বরিশালে ভাষাশহীদদের স্মরণ করলেন যারা...  ঠাকুরগাঁও আদালতে বিজিবির বিরুদ্ধে মামলার আবেদন  কলাপাড়ায় বাসার সামনে কলেজ শিক্ষিকাকে ছুরিকাঘাত  বরিশালে কলেজে ইত্তেফাক সম্পাদকের শুভেচ্ছা বিনিময়