• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

বরিশালে শিক্ষার্থীকে আটকে ধর্ষণ, মূলহোতা গ্রেপ্তার

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট১১:৫৩ অপরাহ্ণ, মে ১৪, ২০১৬

বরিশাল: বরিশালে সদ্য ঘোষিত এসএসসি পরীক্ষায় পাশ করা এক ছাত্রীকে (১৫) অপহরণ করে আটকে ধর্ষণের অভিযোগ মিলেছে। সেই ঘটনায় মূলহোতা ধর্ষককে গ্রেপ্তার পরবর্তী শনিবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজরে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

 

একই সাথে উদ্ধার শিক্ষার্থীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বরিশাল শের-ই বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর আগে শুক্রবার গভীর রাতে পাশ্ববর্তী উপজেলার দিয়াসুর গ্রামে এ সফল অভিযান চালায় পুলিশ।

 

উপজেলার আশোকাঠি গ্রামের বাসিন্দা আহাদ কাজী রাজধানীর একটি গার্মেন্টেসের কর্মচারি বলে জানিয়েছে পুলিশ।’ গৌরনদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আলাউদ্দিন মিলন জানান, উপজেলার আশোকাঠি গ্রামের ওই স্কুল ছাত্রী নিজ বাড়ি থেকে থ্রি-পিস নিয়ে গত ৭ মে সকাল ৯টার দিকে বাজারে টেইলারের দোকানের উদ্দেশ্যে রওনা দেয়।

 

পথিমধ্যে একই এলাকার বখাটে গার্মেন্টস কর্মচারী আহাদ কাজীর নেতৃত্বে ৪ থেকে ৫ যুবক দুটি মোটরসাইকেলযোগে এসে স্কুলছাত্রীর গতিরোধ করে। এ সময় বখাটে যুবকরা স্কুলছাত্রীকে জোরপূর্বক একটি মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে চলে যায়। এরপর অপহৃত স্কুলছাত্রীকে ঢাকায় এবং উজিরপুরে ঘনিষ্ঠ স্বজনদের বাড়িতে আটকে রেখে দিনের পর দিন ধর্ষণ করে আহাদ কাজী।

 

উজিরপুর থেকে ধর্ষক আহাদ কাজী শুক্রবার ভোররাতে অপহৃত ধর্ষিত স্কুলছাত্রীকে গৌরনদী উপজেলার দিয়াসুর গ্রামের বোনের বাড়িতে নিয়ে যায়। গোপণ সংবাদের ভিত্তিতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গৌরনদী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মেহেদী হাসান পুলিশ নিয়ে গভীর রাতে অভিযান চালিয়ে অপহৃতা স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে। এবং ধর্ষক আহাদ কাজীকে গ্রেপ্তার করে।

 

এর আগে  স্কুলছাত্রীর মা বাদী হয়ে আহাদ কাজীসহ ৫ জনকে আসামি করে গত ১০ মে গৌরনদী মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। পুলিশ জানায়, ধর্ষিতা ২২ ধারায় বরিশাল জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জবাববন্দি দিয়েছে। পরবর্তীতে তাকে ডাক্তারী পরীক্ষার শেবাচিম হাসপাতালে পাঠানো হয়।’

ads

লাইভ

টপ