• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

পটুয়াখালীর লেবুখালী সেতুর ২৫ ভাগ নির্মাণ কাজ শেষ

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট১০:৪৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৮

বরিশাল-পটুয়াখালী সীমান্তের পায়রা নদীতে নির্মাণাধীন ‘লেবুখালী সেতু’র কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে মোট কাজের ২৫ ভাগ। চার লেনের সেতুটি নির্মাণ হলে রাজধানী থেকে কুয়াকাটা ও পায়রা বন্দরে যাতায়াতে সময় কমবে প্রায় একঘণ্টা।

সেতুটি হবে দৃষ্টিনন্দন। ভৌগলিকভাবে নদ-নদী বেষ্টিত বরিশাল অঞ্চল।

এ কারণে অল্প দূরত্বেও এ অঞ্চলে যাতায়াতে সময় লাগে স্বাভাবিকের চেয়ে অনেকটা বেশি। ‘লেবুখালী সেতু’ নির্মাণ সম্পন্ন হলে রাজধানী কিংবা বরিশাল থেকে কুয়াকাটা এবং পায়রা বন্দরে যাতায়াতে সময় কমবে। স্বাভাবিক গতিতেই চলছে দৃষ্টি নন্দন এই সেতুর নির্মাণ কাজ।

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ২০১৯ সালের মে মাসে সেতু চলাচলের জন্য উপযোগী হবে।

পায়রা ব্রিজের ডেপুটি টিম লিডার তাপস কুমার পাল সাংবাদিকদের বলেন, ‘৫টি পিলারের মধ্যে ২টি পিলারের কাজ শেষ হয়েছে। আরও তিনটির কাজও শুরু করবো। আশা করি ২০১৯ সালের মে মাসে সেতু চলাচলের জন্য উপযোগী হবে।’

নদীর নাব্যতা অক্ষুন্ন রাখতে সেতুতে সর্বাধুনিক ডিজাইন ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানান দায়িত্বরত কর্মকর্তা।

লেবুখালী ব্রিজের ডেপুটি প্রজেক্ট ম্যানেজার ইন্তেখাব ওয়াহিদ রুশো বলেন, ‘যেকোনো উন্নয়নই টেকসই হতে হয়। নদীর নাব্যতা রক্ষায় নদীতে আধুনিক ডিজাইন ব্যবহার করা হয়েছে। বাস্তব অবস্থা বিবেচনা করেই ব্রিজের কাজ এগিয়ে নিচ্ছি।’

কুয়েত সরকারের আর্থিক সহায়তায় ২০১৬ সালের জুলাই মাসে পায়রা নদীর লেবুখালী পয়েন্টে নির্মাণ কাজ শুরু হয়। এর নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে এক হাজার বাইশ কোটি টাকা।

খুব শীঘ্রই পূরণ হতে চলেছে দক্ষিণাঞ্চলবাসীর স্বপ্নের এই লেবুখালী সেতু। এটি নির্মাণ হলে কুয়াকাটায় পর্যটক সংখ্যা আরও বাড়বে। পায়রা সমুদ্র বন্দরে গতি আসবে।

আর দক্ষিণাঞ্চলের ভাগ্য উন্নয়ন হবে। অর্থনীতি হবে সমৃদ্ধ। এমনটাই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।’

লাইভ

টপ