• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

দ্বিতীয় ধাপে বিএনপির প্রার্থী নেই ৭৫ ইউপিতে

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট৬:০০ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৪, ২০১৬

দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ৬৪৭ ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে কমপক্ষে ৭৫টিতে বিএনপির কোনো চেয়ারম্যান প্রার্থী নেই। অপরদিকে, কমপক্ষে ৩১ ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে চলেছেন। রোববার দ্বিতীয় ধাপের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার শেষে সোমবার এ তথ্য পাওয়া গেছে।

প্রসঙ্গত, প্রথম ধাপের ৭৩২টির মধ্যে ৬২  ইউপিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা নির্বাচিত হতে চলেছেন। ওই ধাপে বিএনপির প্রার্থী নেই ১১৯টিতে।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, দ্বিতীয় ধাপে ৬৪৭ ইউপিতে ৩১ মার্চ ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

২ মার্চ মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিনের হিসাব অনুযায়ী, এসব ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে মোট তিন হাজার ১০৮ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। এর মধ্যে ১৩টি ইউপিতে মাত্র একজন করে প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এরা সবাই আওয়ামী লীগ মনোনীত। এ ১৩ ইউপি হলো কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরের দিঘীরপাড়; গোপালগঞ্জ সদরের বোড়াশী, বৌলতলী, দুর্গাপুর, কাঠি; জয়পুরহাট সদরের ধলাহার, দোগাছী ও জামালপুর; ভোলা সদরের কাচিয়া; মাদারীপুর সদরের ঝাউদি এবং ফেনীর পরশুরাম উপজেলার চিথিলা, বক্স মাহমুদ ও মির্জানগর।

তবে অনিয়মের অভিযোগে নির্বাচন কমিশন পরশুরামের তিনটি ইউপির নির্বাচন স্থগিত রেখেছে। তদন্ত শেষে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানাবে ইসি।

কেবল একজন প্রার্থী থাকা ১৩টি ইউপির সঙ্গে রোববার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে আরও ১৮টি ইউপি যোগ হয়েছে। এর মধ্যে আছে মুন্সিগঞ্জের শ্রীপুরের ষোলঘর ও সিরাজদিখানের কেয়াইন; জয়পুরহাট সদরের বম্বু, মোহাম্মদাবাদ ও পরানপৈল; সিরাজগঞ্জ সদরের রতনকান্দি; শেরপুরের নকলার গনপদ্দি, গোপালগঞ্জের সদরের হরিদাসপুর, উলপুর, গোবরা, করপাড়া, লতিফপুর, রঘুনাথপুর, সাতপাড় ও সুকতাইল, যশোর সদরের আরবপুর, দেয়াড়া ও নরেন্দ্রপুর। এসব ইউপিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও বিএনপির প্রার্থী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করায় কেবল ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীরা রয়েছেন। এছাড়া কয়েকটিতে বাছাইয়ে বিএনপি ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে।

লাইভ

টপ