• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

তালতলীতে স্বামীর নির্যাতনে স্ত্রীর মৃত্যু

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট৬:৫১ অপরাহ্ণ, মার্চ ২১, ২০১৬

তালতলী: স্বামীর অমানুষিক নির্যাতনে রবিবার রাতে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল হাসপাতালে ৩ সন্তানের জননী খাদিজা বেগমের মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বরগুনা জেলার তালতলী উপজেলাধীন চন্দনতলা গ্রামে।

খাদিজার পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চন্দনতলা গ্রামের গগন আলী আকনের পুত্র গাঁজা ব্যবসায়ী আবদুস ছালাম আকন (৪৫) গত ২০ বছর আগে বিয়ে করে একই উপজেলার কড়ইবাড়ীয়া ইউনিয়নের গেন্ডামারা গ্রামের আবুল হাসেম হাওলাদারের কন্যা খাদিজাকে। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের দাবীতে স্ত্রীকে প্রায়ই নির্যাতন চালাতো। খাদিজার দরিদ্র পিতা জামাতা ছালামের যৌতুকের দাবী মেটাতে না পারায় নির্যাতনের মাত্রা আরও বেড়েই চলছে। যৌতুক না আনার কারনে মাঝে মধ্যে খাদিজাকে হত্যা ও গুম করে দ্বিতীয় বিয়ের হুমকিও দিয়েছে ছালাম।

 

অতি কৌশুলী ছালাম ঘটনার দিন ৯ মার্চ বুধবার দুপুরে তার ছোট পুত্রকে ভাত খাওয়ানোকে কেন্দ্র করে স্ত্রী খাদিজাকে কিল-ঘুষি ও লাঠি দিয়ে বেধরক মারধর করে। এক পর্যায় খাদিজা ঘটনাস্থলেই জ্ঞান হারায়। খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক খাদিজার পিত্রালয়ের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে প্রাথমিক পর্যায় তালতলী হাসপাতালে ও পরে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে অর্থাভাবে নামমাত্র চিকিৎসা করিয়ে বাড়ী নিয়ে আসে। খাদিজার অবস্থা আশংকা জনক হলে রবিবার সকালে তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করান। চিকিৎসা অবস্থায় খাদিজা রাতেই মারা যান। সোমবার ১১টায় ময়না তদন্ত শেষে লাশ পিত্রালয়ে এনে দাফন করা হয়েছে।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাবুল আখতার জানান, ৯মার্চ খাদিজাকে স্বামী ছালাম অমানুষিক নির্যাতন করে অজ্ঞান করার পর খাদিজার অভিভাবকরা তালতলীতে চিকিৎসা করাতে এসে থানায় অভিযোগ দিয়েছিল। খাদিজা বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীণ অবস্থায় মারা গেছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

লাইভ

টপ