• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

ডিজিটাল গণমাধ্যম অনলাইন সম্পর্কে ধারণা নেই সাদিক আব্দুল্লাহর!

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট৮:২৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০১৭

দেশের অধিকাংশ প্রিন্ট মিডিয়া এখন অনলাইন গণমাধ্যম নির্ভর হয়ে পড়েছে। এক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই ইলেকট্রনিক্স মিডিয়া অর্থাৎ টিভি চ্যানেলগুলোও। কারণ টেলিভিশনে সংবাদ প্রচারের ক্ষেত্রে তাদের কতিপয় নিয়ম কানুন রয়েছে। যে কারণে নির্ধারিত সময়ের বাইরে টেলিভিশন চ্যানেলগুলো সংবাদ প্রচার করতে পারছে না।

তবে তাৎক্ষণিকভাবে ‘ব্রেকিং নিউজ’ এ সংবাদের সারমর্মটা তুলে ধরলেও পুরো ঘটনার জন্য পাঠককে অপেক্ষা করতে হচ্ছে। আর প্রিন্ট মিডিয়াগুলো দিনের শুরুতে প্রকাশ পাওয়ায় সময়ের সংবাদ সময়ে পাওয়া তাদের কাছ থেকেও আশা করা যায় না।

ফলে এই দুটি সংবাদমাধ্যমকে পিছে ফেলে ঘটনার সাথে সাথে সংবাদ তুলে ধরে প্রতিনিয়ত পাঠকের খোরাক হচ্ছে অনলাইন নিজউপোর্টালগুলো। অবশ্য ইতিমধ্যে এই অনলাইন গণমাধ্যমকে স্মার্ট বা ডিজিটাল হিসেবে অনেক বিচক্ষণ ব্যক্তি ঘোষণা দিয়েছেন।

যে কারণে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার প্রধান শেখ হাসিনা ও তার মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ বরাবরই অনলাইন গণমাধ্যমগুলো নিয়ে ভাবছেন। অবশ্য ইতিমধ্যে এই সংবাদমাধ্যমকে একটি নীতিমালার আওতায় নিয়ে আসতে তাদের নানা উদ্যোগ বাস্তবায়নের পরিকল্পনা নিয়েছেন।

কিন্তু বিস্ময়কর বিষয় হচ্ছে- বুধবার (২২ নভেম্বর) পত্রিকা অফিসগুলোতে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়েছেন। তার স্বাক্ষরিত ওই প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় সংবাদ তুলে ধরার অনুরোধ করেছেন তিনি।

অথচ বর্তমানে স্মার্ট বা ডিজিটাল গণমাধ্যম অনলাইন নামটি লিখতেই তিনি ভুলে গেছেন। বরিশালে এখন বেশ কয়েকটি অনলাইন নিউজপোটালই পাঠকের সংবাদের চাহিদা মেটাচ্ছেন। পাশাপাশি রাজনৈতিক বা অপরাধমূলক সংবাদ প্রকাশ করে বরাবরই এই অনলাইন নিউজপোর্টালগুলো আলোচনায় রয়েছে।

এমকি অনলাইন নিউজপোর্টালের সংবাদ নিয়ে ক্ষমতাসী আ’লীগ অর্থাৎ সাদিকের আস্তাভজনদেরও সময় বিশেষ আলোচনায় জুড়তে দেখা যায়। কিন্তু সেই সংবাদ মাধ্যম সম্পর্কে মোটেও ধারণা নেই বরিশাল সিটি নির্বাচনে প্রার্থীতা করতে ইচ্ছুক আ’লীগ নেতা সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর (!)

যদিও ভাবা হচ্ছে হয়তো বা সাদিক ভুলবশত অনলাইন নামটি লিখতে ভুলে গিয়েছিলেন। অথচ সেই গণমাধ্যগুলোতে সাদিকের প্রেস বিজ্ঞপ্তিটি আগেভাগে সংবাদ আকারে তুলে ধরা হয়েছে।

বরিশালট্রিবিউন নামে একটি নিউজপোর্টাল তার সেই প্রেস বিজ্ঞপ্তি বিশ্লেষণ করে ‘‘সাদিক আব্দুল্লাহর নাম ভাঙিয়ে চাঁদাবাজি, আইনের আশ্রয় নিলেন সাদিক’’ এই শিরোনামে সংবাদ ইতিমধ্যে প্রকাশ করেছে।

বরিশালক্রাইমনিউজ তাদের সংবাদে বলেছে ‘‘সাদিক আব্দুল্লাহর নামে চাঁদাবাজি, থানায় সাধারণ ডায়েরি’’। এছাড়া অনেক অনলাইন নিউজপোর্টাল বিভিন্ন শিরোনামে প্রেস বিজ্ঞপ্তিটি সংবাদ আকারে তুলে ধরেছে।

ফলে সাদিকের নাম ভাঙিয়ে যারা চাঁদাবাজিতে লিপ্ত তারা হয়তো ইতিমধ্যে এই স্মার্ট মিডিয়ার কল্যাণে সাদিকের হুঁশিয়ারি বার্তা পেয়ে গেছেন।

কিন্তু সাদিক তার বার্তাটি প্রিন্ট মিডিয়ায় পাঠিয়ে প্রকাশের জন্য এখন অপেক্ষার প্রহর গুনছেন…!

 

লাইভ

টপ