• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

জিনের নির্দেশে দুই সন্তানকে হত্যা

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট৭:৪৬ অপরাহ্ণ, মে ৫, ২০১৬

ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার বাগাট ইউনিয়নের চরবাগাট গ্রামের জোড়া শিশু খুনের হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। জিনের নির্দেশে মা তাসলিমা বেগম ঘুমন্ত অবস্থায় শিশু দুটিকে গলাটিপে হত্যা করেছেন বলে স্বীকার করেছেন।

ঘাতক মা তাসলিমা বেগমকে আটক করেছে পুলিশ। তার বিরুদ্ধে সন্তান হত্যার মামলা হয়েছে। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে পুলিশের কাছে চাঞ্চল্যকর দুই শিশু হত্যার বিস্তারিত বর্ণনা দিয়েছেন ঘাতক মা তাসলিমা বেগম। গত ২ মে চরবাগাট গ্রামের আবদুল্লাহ আল মামুনের শিশু পুত্র তকি (৫) ও তাহেরা (৬ মাস)-কে ঘরের মধ্য থেকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করেছিল স্থানীয় এলাকাবাসী।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ফরিদপুর জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আনা হয় ঘাতক শিশু দুটির মা তাসলিমা বেগমকে। এসময় তাকে স্বাভাবিক দেখাচ্ছিল। পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তাসলিমা স্বীকার করে বলেন, সে প্রতিরাতেই তাহাজ্জুদের নামাজ পড়ে ঘুমাতে যায়। ঘটনার রাতে তিনি তাহাজ্জুদ নামাজ পরে শুয়ে পড়েন। এসময় তার কাছে গায়েবী হুকুম আসে শিশু দুটিকে হত্যা করার। সে অনুযায়ী রাত তিনটার দিকে প্রথমে ঘুমিয়ে থাকা পুত্র সন্তান তকিকে গলা টিপে হত্যা করেন। পরে ৬ মাস বয়সী মেয়ে তাহেরাকে একই কায়দায় গলা টিপে হত্যা করেন। দুই শিশুকে হত্যা করার পর তিনি ঘুমিয়ে পড়েন। ভোরে উঠে স্বাভাবিক কাজকর্ম করেন। এ বিষয়ে তাসলিমা আর কোন কথা না বলে স্বাভাবিক থাকেন। তাসলিমার স্বামী আবদুল্লাহ আল মামুন এ হত্যার ঘটনার সময় তার মাকে চিকিৎসা করানোর জন্য ভারতে অবস্থান করছিলেন।

ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিম সুপার কামরুজ্জামান জানান, তাসলিমা আমাদের কাছে স্বীকার করেছে, তার কাছে গায়েবী আওয়াজ আসে শিশু দুটিকে হত্যার। এরপর সে তার দুই সন্তানকে হত্যা করে। হত্যাকাণ্ডে অন্য কেউ জড়িত রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। শিশু দুটি হত্যার পর আমরা গভীর নজরে রেখেছিলাম তাসলিমাকে। সে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে থাকার কারণে আমরা তাকে জিজ্ঞাবাসাদ তেমন একটা করতে পারিনি। তবে নিহত শিশু দুটির দাদা ইউসুফ আলী মোল্যা মধুখালী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়েরের পর আমরা ওই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করি। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি সবকিছু স্বীকার করেন। ফলে বৃহস্পতিবার তাকে আটক করে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়। তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলা হওয়াতে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। প্রয়োজনে তাকে রিমান্ডে নিয়ে আরও জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে।

এদিকে, তকি ও তাহেরা হত্যার সাথে জড়িত থাকায় ঘাতক মা তাসলিমার নামে মধুখালী থানায় হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে মামলাটি দায়ের করেন শিশু দুটির দাদা ইউসুফ আলী মোল্যা। মামলা নং-৩। তারিখ-০৫-০৫-২০১৬ইং।
আলোচিত এ খুনের ঘটনায় এলাকায় বেশ আলোড়নের সৃষ্টি হয়। স্থানীয়রা ঘাতক মায়ের ফাঁসি দাবি করেছেন।

লাইভ

টপ