• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook
সর্বশেষ :

জিডি করেও রক্ষা মেলেনি

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট১১:৫৯ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২২, ২০১৬

থানা পুলিশের কাছে আইনী সহয়তা চেয়েও সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা পায়নি বরিশালের সদর উপজেলার চরকাউয়া ইউনিয়নের একটি নিরীহ পরিবার। পুলিশ তদন্ত করে যাওয়ার পরপরই সেই ভয়ানক সন্ত্রাসের হিংস্র থাবার শিকার হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শুক্রবার বরিশাল সদর উপজেলার চরকাউয়া ২নং ইউনিয়নের সাতানি এলাকায়।

 

হামলার শিকার পরিবারটি এখন ওইসব চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের শাস্তির আর্জি জানিয়ে থানা পুলিশের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে। পুলিশ দেখছি কি করা যায়। স্থানীয় সূত্র জানায়, বাড়ির পাশে একটি সড়কে চলাচল নিয়ে সোলেয়মান সরদারের পরিবারের সাথে প্রতিবেশি সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক শাখায়াত হোসেন বাঘার দ্বন্দ্ব চলে আসছে।

 

বিগত সময়ে ওই ঘটনাকে কেন্দ্র সোলেয়মানকে নানা ধরণের হুমকী-ধামকি দেয় শাখায়াত হোসেন বাঘা। ওই ঘটনায় গত ১১ এপ্রিল সংশ্লিষ্ট মেট্রোপলিটন বন্দর (সাহেবেরহাট) থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন সোলেয়মান। গতকাল শুক্রবার ডায়েরীর সূত্র ধরে পুলিশ তদন্তে আসে এবং স্থানীয়দের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করে চলে যায়। কিন্তু পুলিশ যাওয়ার পরপরই বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে সন্ত্রাসী শাখায়াত হোসেন বাঘা এবং তার সহযোগী ডাকাত জলিলসহ ৫ থেকে ৬জন। এক পর্যায়ে তারা অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সোলেয়মানের বাসা-বাড়িতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এসময় প্রেিরাধে এগিয়ে গেলে তাদের হামলার শিকার হন সোলেয়মান (৫০), স্ত্রী ফরিদা বেগম (৪০) তার বোন মাকসুদা বেগম (৪২) এবং নাতনী সুমাসহ মোট ৫জন।

 

পুলিশ জানিয়েছে, হামলার ঘটনায় শুনেছে। এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পাওয়া মাত্রই হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তাছাড়া যে জিডির সূত্র ধরে পুলিশ তদন্তে গিয়েছিলো সেটিরও প্রমাণ পেয়েছে। সেই ঘটনায়ও শাখায়াত হোসেন বাঘার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হবে। স্থানীয় অপর একটি সূত্র জানায়, শাখায়াত হোসেন বাঘা এবং তার সহযোগী ডাকাত জলিল এলাকায় শুধু সন্ত্রাসী কার্যকালাপের মধেই সিমাবদ্ধ থাকেনি। মাদক ক্রয়-বিক্রিসহ নানা অপরাধে জড়িত রয়েছে। এছাড়া ডাকাত জলিল একাধিক ডাকাতি মামলায় বেশ কয়েক দফা জেলও খেটেছে।

 

বন্দর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাবুব উল আলম জানান, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তাদের গ্রেপ্তারের পুলিশ মাঠে কাজ করছে। কিন্তু আত্মগোপনে থাকায় গ্রেপ্তারে সফলতা পাওয়া যাচ্ছে না।’

লাইভ

টপ