• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

কলেজছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা, ৩ রোমিওকে জুতাপেটা

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট১২:২৪ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১১, ২০১৬

বরিশাল: উজিরপুরে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টার সময় ৩ রোমিওকে জুতাপেটা করলেন ছাত্রী। এলাকাবাসী তাদেরকে আটক করে থানায় সোপর্দ করে, মামলা দায়ের করা হয়েছে। ১০ এপ্রিল রবিবার রাতে ছাত্রী বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামী করে উজিরপুর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায় ৮ এপ্রিল শুক্রবার বিকালে মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে কালকিনি উপজেলার শ্বশিঘর চলবল গ্রামের অনন্ত মধুর ছেলে বাবুল মধু(৩৫), আরো ২ বন্ধু রাজাপুর কোটালীপাড়া গ্রামের শচীন বিশ্বাসে ছেলে তরুণ বিশ্বাস(৩২), তারাকান্দ গ্রামের দুলাল চন্দ্র হালদারের ছেলে দীপক কুমার হালদার (৩৪) হারতা গ্রামের নয়াকান্দি একটি দোকানের কাছে মেয়েটিকে ফোন করে আনে।

 

পরে বাবুল মধু ধর্ষনের উদ্দেশ্যে নির্জন স্থানে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে মেয়েটি ডাকচিৎকার দিয়ে তাদেরকে জুতাপেটা করে। এ সময় এলাকাবাসী এগিয়ে এসে ৩ বখাটেকে উত্তাম মাধ্যম দিয়ে ঐ রাতে ইউপি সদস্য কৃষ্ণ কান্ত হালদারের কাছে জিম্মা রাখে। শনিবার সকালে তাদেরকে হারতা পুলিশ ক্যাম্পে হস্তান্তর করা হয়। বিকেলে উজিরপুর মডেল থানায় তাদেরকে আনা হয়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বরিবার রাত্র ১০টা পর্যন্ত আসামীরা উজিরপুর থানা হেফাজতে রয়েছে। নির্যাতিত মেয়েটি আরো জানান গত ১৯ ফেব্র“য়ারী বখাটে বাবুল মধূ মোবাইলে প্রেমের অভিনয় করে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের কাছে একটি বাড়িতে নিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষনের চেষ্টা চালায়।

 

 

এ সময় নিজের বুদ্ধিমত্তা জোরে আত্মরক্ষা করতে সক্ষম হয়।এরপরে থেকে বিভিন্ন সময় ফোন দিয়ে হুমকি ও ভয়ভীতি দেখাত এমনকি মোবাইল ফোনে নগ্ন ছবি তৈরি করে ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। মেয়ের বাবা জানান, ওই তিন বখাটে আমার মেয়ের ইজ্জত নিতে এসেছিল। আমি প্রশাসনের কাছে এর সুষ্ঠ বিচার চাই। উজিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) ফারুক হোসেন জানান আমরা অভিযোগের পূর্বে ৩ জনকে আটক করেছি, বাদী লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

লাইভ

টপ