• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

কলাপাড়ায় ব্যালট বক্স ভাংচুর-গুলিবর্ষণ

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট৬:৫৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ২২, ২০১৬

কলাপাড়া: পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় তিনটি ইউনিয়নে কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া শান্তিপুর্নভাবে ভোট গ্রহন সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে উপজেলার চাকামইয়া ইউনিয়নের চুঙ্গাপাশা এবতেদায়ী মাদ্রাসা ও নিশনবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্র্রে হামলায় ব্যালট বাক্স ছিনতাই ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ১০ রাউন্ড গুলি ফাঁকা ছোড়ে। এতে মেম্বার প্রার্থী আজিজুল হক বুদাই, মো.শাহ জালাল হাওলাদার, খলিল হাওলাদার, সাইদুল শিকদার, মোয়াজ্জেম চৌকিদার গুলিবিদ্ধ হয়। ঘটনার পর ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মো.মনিরুজ্জামান ভোট গ্রহন স্থগিত করে দেয়।

 
একই ইউনিয়নের নিশানবাড়িয়া গ্রামের সাত নং ওয়ার্ডের আমীর হোসেন খান ও মোজাম্মেল হাওলাদার দুই মেম্বর প্রার্থী সমর্থকদের হামলা পাল্টা হামলায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও মেম্বার প্রার্থী আমীর হোসেন সহ অন্তত:১৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে একিন মিয়া, নাসির হাওলাদার, ফরিদ হোসেন, আরিফ হোসেনকে কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই ইউনিয়নের ইউনিয়নের পূর্বচাকামইয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্র থেকে বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় মো.আবুল হোসেন নামের এক যুবককে কেন্দ্রর অবস্থানরত এসআই মো.নাজমুল হাসান আটক করে । পরে তাকে ভ্রাম্যমান নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো.আনিছুর রহমান এক বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন বলে ওই ভোটকেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মো.আশ্রাফ উদ্দিন নিশ্চিত করেছে।

 
এদিকে উপজেলার নীলগঞ্জ ও টিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কোন রকম সহিংসতা ছাড়াই দীর্ঘ লাইনে দাড়িয়ে নারী-পুরুষ ভোটাররা সকাল থেকে উৎসবমুখর পরিবেশে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। তবে টিয়াখালী ইউনিয়নের বিএনপি প্রার্থী গাজী আক্কাস উদ্দীন কেন্দ্র থেকে তার এজেন্টদের বের করে দেয়ার অভিযোগে নির্বাচন থেকে সরে দাড়ানোর ঘোষনা দেন।
চুঙ্গাপাশা ভোট কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার মো. মনিরুজ্জামান খান জানান, ভোট শুরু হওয়ার পর সকাল সাড়ে নয় টার দিকে তিন থেকে চারশত দূর্বৃত্তরা ককটেল ফাটিয়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ভোটকেন্দ্রের ভিতর ঢুকে ব্যালট পেপার এবং তিনটি ভোটবাক্স ছিনিয়ে নিয়ে ভাংচুর করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ সাত রাউন্ড শর্টগানের ছররা গুলি ছোড়ে। এতে ভোট কেন্দ্রে উপস্থিত কিছু মানুষ আহত হয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

 
এব্যাপারে নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ছিদ্দিকুর রহমান জনায়, চাকামইয়া ইউনিয়নের চুঙ্গাপাশা ভোট কেন্দ্র ছাড়া সকল ভোট কেন্দ্রে বিচ্ছিন্ন কয়েকটি ঘটনার ছাড়া সুষ্ঠু ভাবে ভোট গ্রহন সম্পন্ন হয়েছে। একই সাথে কলাপাড়া উপজেলার নীলগঞ্জ এবং টিয়াখালী ইউনিয়নে শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট গ্রহন শেষ হয়েছে।

ads

লাইভ

টপ