• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

এসআইর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি অভিযোগ শুনলেন বরিশাল ডিআইজি

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট৯:২৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১২, ২০১৭

বরিশালের মুলাদী উপজেলার নাজিরপুর নৌ-পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক (এসআই) উত্তমের অপসারণের দাবি তুলেছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা। এই দাবি বরিশাল রেঞ্জ ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলামের কাছে রাখা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে মুলাদী থানা চত্বরে আয়োজিত ওপেন হাউজ ডে’ অনুষ্ঠানে উপজেলার জনপ্রতিনিধি, মসজিদের ইমাম, কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামসহ সর্বস্তরের জনতার সঙ্গে বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম বিপিএম মতবিনিময় সভা করেন।

ওই সভায় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মাইনুল আহসান সবুজ অভিযোগ আকারে বলেন, নাজিরপুর নৌ পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এসআই উত্তম কুমার যোগদানের পর থেকেই বিভিন্ন অজুহাতে জেলেদের কাছ থেকে মাসোয়ারা আদায় করে আসছেন।

ওপেন হাউজ ডে’ অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া একাধিক ব্যক্তি জানান, প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ রক্ষায় ১ থেকে ২২ অক্টোবর ইলিশ ধরা বন্ধ রাখার সরকারি নিষেধাজ্ঞা থাকলেও জেলেরা মাসোয়ারার টাকা সংগ্রহ করতে বাধ্য হয়েই মা ইলিশ নিধন করছেন। এতে নৌ পুলিশ প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সহায়তা করছে বলে ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মাইনুল আহসান সবুজ অভিযোগ করেন।

গত ৯ অক্টোবর উপজেলার জয়ন্তী নদীতে একদল জেলে মা ইলিশ নিধনের সময় এসআই উত্তম কুমার জেলেদের কাছ থেকে টাকা আদায় করেন এবং তাদের মাছ ধরার সুযোগ দেন। ওই সময় সফিপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবু মুছা হিমু মুন্সি আকস্মিক উপস্থিত হয়ে বিষয়টি এসআই উত্তমের কাছে জানতে চান।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে এসআই উত্তম ইউপি চেয়ারম্যানের সঙ্গে রূঢ় আচরণ করেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই ঘটনার প্রেক্ষিতে ডিআইজি, এসপি, এএসপি ও অফিসার ইনচার্জের উপস্থিতিতে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দ্রুত ফাঁড়ি ইনচার্জের অপসারণের দাবি করেন।

ওই সময় ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেন।

নৌ পুলিশের বরিশাল অঞ্চলের ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার আব্দুল মোতালেব বরিশারটাইমসকে জানান, অভিযোগের বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। সত্যতা মিললে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’’

লাইভ

টপ