• Youtube
  • google+
  • twitter
  • facebook

ইলিশের পেটে চলবে পান্তা ইলিশ উৎসব

বরিশাল টাইমস রিপোর্ট৯:১৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১১, ২০১৬

কলাপাড়া: পহেলা বৈশাখে পর্যটন কেন্দ্র কুয়াকাটায় ইলিশের পেটে বসে চলবে পান্তা ইলিশের উৎসব। বাংলা নববর্ষ উদ্যাপন উপলক্ষে কুয়াকাটা সেজেছে নতুন সাজে। হোটেল-মোটেলসহ রেস্তোরা গুলোতে এখন লেগেছে নতুনত্বের ছাপ। বর্ষ বরন এ উৎসবকে ঘিরে মাসব্যাপী বাঙ্গালীর ঐতিহ্য ও বাঙ্গালী খাবারের ব্যাপক আয়োজন করেছে কুয়াকাটা ইলিশ পার্ক। তবে পর্যটকদের কাছে আকর্ষন হবে পুরো পার্কেই বাঙ্গালী পরিবেশে মাটির ক্রোকারিজে খাবার পরিবেশন করা হবে। এ বছর ৭২ ফুট দৈর্ঘ্য একটি ইলিশের ভাস্কর্য্যরে পেটে বসে পর্যটকরা পান্তা ইলিশ খেয়ে বৈশাখ উদ্যাপন করবে বলে আয়োজনকারীরা জানিয়েছেন।

ইলিশ পার্ক এ্যান্ড রিসোর্ট সূত্রে জানা গেছে, পহেলা বৈশাখ উদ্যাপনকে সামনে রেখে পার্কে ইতিমধ্যে বাঘ, সিংহ, হাতি, হরিন, ক্যাঙ্গারু,কুমির, বক, কচ্ছপ, জিরাফ সহ নানা প্রজাতির জীবজন্তুর ভাস্কর্য্য প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। সমগ্র পার্কের চারদিকে রয়েছে নানা প্রজাতির সামদ্রিক মাছের প্রতিকৃতি। পার্কে ঢুকলেই টম এন্ড জেরী (বিদেশী কুকুর) সমগ্র পার্ক ঘুরিয়ে নিয়ে যাবে ইলিশের রেস্তোরায়। পার্কটি সাজানো হয়েছে ফুল ও ফলের গাছ দিয়ে। শুধু পহেলা বৈশাখ নয় প্রতিদিন সকালে চলবে পান্তা ইলিশ সহ থাকবে হরেক রকমের ভর্তা। দুপুরের থাকবে  শর্ষে ইলিশ, ইলিশ ভুনা, ইলিশ কারি, শাক-সবজি, শুটকীসহ ৩০ প্রকারের ভর্তা ও চাটনী। সন্ধ্যার পরে পার্কে প্রবেশ করলে তাদের খেতে দেয়া হবে বাহারী পিঠা। রাতে পাওয়া যাবে ইলিশ ভাজা, চিংড়ী ভর্তা, ডাল ও শাক-সবজি। পুরো বৈশাখ জুরে এমন আয়োজন থাকবে বলে ইলিশ পার্ক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন।

কুয়াকাটায় ভ্রমনে আসা সোয়েব আহম্মেদ জানান, প্রথম বারের মত কুয়াকাটায় বেড়াতে আসলাম। তিনদিন ধরে ওখানকার বিভিন্ন দর্শনীয় স্পট ঘুরে দেখেছি। খুব ভালই লেগেছে। তবে বৈশাখ বরনে সব যেন নতুনত্বের ছোঁয়া লেগেছে। এছাড়া ইলিশ পার্কের মধ্যে বাঁশ ও ছনের ঘর ও নানা প্রজাতির বন্য জীবজন্তুর ভাস্কার্য্য আমাদের আনন্দের মাত্রা আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।

টুরিষ্ট গাইড আবুল হোসেন রাজু জানান, বৈশাখ বরন করতে ইলিশ পার্ক এ বছর ব্যপক আয়োজন হাতে নিয়েছে। ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য এরকম পর্যটন জোন ইলিশ পার্কটি কুয়াকাটায় ইতিবাচক প্রভাব পরবে।
কুয়াকাটা খানাবাদ ডিগ্রি কলেজের সহকারি অধ্যাপক খান এ রাজ্জক জানান, ব্যতিক্রম এ পার্কটি পর্যটকদের বিনোদন প্রেমীদের কাছে নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। পহেলা বৈশাখে প্রতি বছরের এবারও কুয়াকাটায় পর্যটকদের সমাগম ঘটবে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

ইলিশ পার্ক এ্যান্ড রিসোর্ট’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুমান ইমতিয়াজ তুষার জানান, ২০১৬ থার্টি ফার্ষ্ট নাইটে এ ইলিশ পার্কটি আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে। বাংলা নববর্ষ এলে আমরা শুধু পহেলা বৈশাখকে ঘিরেই সবকিছু করছি। ইলিশ পার্ক এ আনন্দ উৎসব মাস ব্যাপী ধরে রাখতে এই আয়োজন করছে। আশা করি এতে অংশ নিলে বাঙ্গালি খাবারের আসল সাধ নিতে পারবে বলে তিনি জানান।

কুয়াকাটা নৌ-পুলিশ ফাড়ির অফিসার ইনচার্জ এসআই সঞ্জয় মন্ডল জানিয়েছেন সড়ক যোগাযোগ ভাল হওয়ায় এবছর পহেলা বৈশাখে ব্যাপক পর্যটকদের আগামন ঘটতে পারে। টুরিস্ট পুলিশের পাশাপাশি পর্যটকদের নিরাপত্তার স্বার্থে নৌ-পুলিশেরও টহল থাকবে।

টুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটা জোন ইনচার্জ এএসপি মীর ফসিউর রহমান বলেন, বর্ষবরণ উৎসবকে ঘিরে অগনিত পর্যটকদের সমাগমকে মাথায় রেখে প্রতিটি টুরিস্ট পয়েন্ট পুলিশের নিরাপত্তা জোরদার করা হবে।

লাইভ

টপ